এসইও এর মৌলিক পাঠ

এসইও এর মৌলিক পাঠ

এসইও বা সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন হলো সার্চ ইঞ্জিন এর রেজাল্ট বা ফলাফল পেইজ এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য স্থান (প্রথম সারি, বা টপ প্লেইস) দখল করার (অর্জন করার) জন্য বিভিন্ন দক্ষতা ও কৌশল কাজে লাগিয়ে ওয়েবসাইট এর কন্টেন্টকে এমনভাবে উপস্থাপন করা, যার ফলে সেগুলোর গুরুত্ব বা দৃশ্যমান প্রভাব সার্চ ইঞ্জিনগুলোর নিকট সহজে প্রতীয়মান হয় এবং তারা প্রভাবিত হয়ে তাদের সার্চ ফলাফলে সেসব কন্টেন্টকে গুরুত্বপূর্ণ স্থান বা অবস্থান প্রদান করে। এর ফলে যে ফলাফল তৈরি হয়, সেগুলোকে “ন্যাচারাল”, “অর্গানিক” বা “আর্নড” রেজাল্ট বা ফলাফল বলা হয়। এই ফলাফলের উপর ওয়েবসাইট এর ট্র্যাফিক বা ইউজার (ওয়েবসাইট ব্যবহারকারী) এর পরিমাণ বহুলাংশে নির্ভর করে। ওয়েবসাইট এর ব্যবহারকারী যতো বেশি হবে, ব্যবসায়িক দৃষ্টিকোণ থেকে সেই ওয়েবসাইট এর আর্থিক মুল্য বা উপার্জন ততো বৃদ্ধি পায়।

সংক্ষেপে এসইও হলো ডিজিটাল যুদ্ধবিদ্যা, যাকে তুলনা করা যেতে পারে ঠাণ্ডা লড়াই বা স্নাযু যুদ্ধের (কোল্ড ওয়ার) সঙ্গে!!

সার্চ ইঞ্জিন এর মাধ্যমে যেসব ব্যবহারকারী বা ট্র্যাফিক পাওয়া যায়, সেগুলোকে ”ট্র্যাফিক বা অর্গানিক ট্র্যাফিক, বাংলা নিজেরা অভিধান দেখে শিখে নিবেন :)!” বলা হয়।

দীর্ঘ সময় এর ব্যবধানে ধীরে ধীরে অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন, যেমন ইয়াহু, এমএসএন, বিং ইত্যাদি, স্থিমিত হয়ে যাওয়ার প্রেক্ষাপটে গুগল এই ক্ষেত্রের অধিকাংশ স্থান দখল করে নিয়েছে এবং নিজেকে অপ্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে। তাই ভাল ফলাফলের জন্য আপনাকে কেবল মাত্র একটি শব্দ-ই স্মরণ রাখতে হবে, ”গুগল”! কাজও (কন্টেন্ট অপটিমাইজ, কালো আর ধলো কৌশল, যা-ই বলি না কেন) করতে হবে মূলতঃ গুগল এর জন্য-ই!

মন্তব্য করুন:

Scroll Up